২০১৫ সালে চীনে ই-কমার্সের অর্ধেক লেনদেনই মোবাইলের মাধ্যমে হবে

Chinas-mobile-commerce-spending-to-surpass-50-billion-in-2014

চীনে ২০১৫ সালে স্মার্টফোন, ট্যাবলেট এবং অন্যান্য মোবাইল ডিভাইসের মাধ্যমে অনলাইনে কেনাকাটা ৩৩৪ বিলিয়ন মার্কিন ডলারে পৌঁছাবে। এর অর্থ মোবাইলে কেনাকাটা মোট ই-কমার্স ব্যয়ের ৪৯.৭ শতাংশ যা একটি রেকর্ড।

মোবাইল কমার্স চীনে খুব দ্রুতই শক্তিশালী হয়ে ওঠে। ক্রমবর্ধমান মোবাইল ই-কমার্সের মাধ্যমে ২০১৯ সালে ১.৪১ ট্রিলিয়ন ইউএস ডলার ব্যয় হবে।

কয়েক বছর আগের Emarketer এর হিসাবে, মোবাইল কমার্স চীনে খুব দ্রুতই শক্তিশালী হয়ে ওঠে। ক্রমবর্ধমান মোবাইল ই-কমার্সের মাধ্যমে ২০১৯ সালে ১.৪১ ট্রিলিয়ন ইউএস ডলার ব্যয় হবে। তখন এটি অনলাইনে খুচরা বিক্রয়ের ৭১.৫ শতাংশ প্রতিনিধিত্ব করবে। ২০০০ সালের মাঝামাঝিতে দেশটি ডেস্কটপ কম্পিউটারের ইন্টারনেট থেকে বেরিয়ে স্মার্টফোনের যুগে প্রবেশ করে। এটা খুব বেশি আশ্চর্যের নয়, ২০১৪ সালে চীনে ৬৪৯ মিলিয়ন ওয়েব ব্যবহারকারীর মধ্যে ৫৫৭ মিলিয়ন মোবাইল ইন্টারনেট ব্যবহারকারী ছিল।

কয়েকটি প্রতিবেদন অনুযায়ী, চীনের শীর্ষ ই কমার্স কোম্পানি হচ্ছে আলীবাবা। ২০১৪ এর শেষে, আলীবাবা দেখিয়েছে, মোবাইল ভিত্তিক ভোক্তাদের ৪২ শতাংশ Taobao এবং Tmall বাজারে কেনাকাটা করে যা ২০১৩ সালে ছিল ২০ শতাংশ।

মোবাইল কমার্স সমগ্র চীন জুড়ে যেভাবে প্রভাবশালী হয়ে উঠছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সে অবস্থা না। Emarketer এর হিসাবে, ২০১৫ সালে চীনে মোবাইল কমার্স বিক্রয় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে বিক্রয়ের ৪৫০ শতাংশ। আমেরিকান ক্রেতারা এ বছর তাদের মোবাইল ডিভাইসের মাধ্যমে আনুমানিক ৭৪.৯৩ ইউ এস ডলারের কেনাকাটা করবে যা মোট ই কমার্স ব্যয়ের ২২ শতাংশ।

এমনকি ২০১৯ সালে যুক্তরাষ্ট্রে মোবাইল ই কমার্স ব্যবহার একটি মাইলফলকের কাছাকাছি চলে যাবে। আনুমানিক অনলাইন ব্যয়ের ২৮ শতাংশ মোবাইল ডিভাইসের মাধ্যমে হবে। Emarketer এর  পূর্বাভাষ পরিচালক মনিকা পার্ট বলেন, “চীনে ইন্টারনেট ব্যবহারের একটা বড় অংশই মোবাইল ফোনের মাধ্যমে হয়ে থাকে। এটা প্রায় ৮৭.৪ শতাংশ যেখানে যুক্তরাষ্ট্রে ব্যবহারকারীর সংখ্যা ৭৪.৬ শতাংশ”। মোবাইল ইন্টারনেট ব্যবহারকারীরাই বেশিরভাগ মোবাইল ডিভাইসের মাধ্যমে খুচরা ই কমার্স কার্যক্রম সম্পন্ন করে থাকে। কিন্তু যুক্তরাষ্ট্রে এমনটা দেখা যায় না। সেখানে কেনাকাটা কার্যক্রমে এখনও ডেস্কটপ কম্পিউটারই বেশি ব্যবহৃত হতে দেখা যায়।

SOURCETechinasia
SHARE
বাংলাদেশে ই-কমার্স সেক্টরের বিকাশের পাশাপাশি এর সাথে জড়িত সকল ক্রেতা ও বিক্রেতাদের জন্য আলাদা একটি নিউজ মিডিয়া সময়ের চাহিদা হয়ে দাঁড়িয়েছে। তাই ই-কমার্স সংক্রান্ত দেশ বিদেশের সকল সংবাদ আপনাদের কাছে পৌঁছে দেয়ার লক্ষ্য নিয়েই কাজ করে যাচ্ছে ইকমভয়েজ ডট কম।

মন্তব্য পোস্ট করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here