ক্রাফটভিশন এর জন্ম ও একজন উদ্যোক্তার সেকাল-একাল

Craftvision Ibrahim Khalil

ইব্রাহিম খলিল // উদ্যোক্তা হওয়া এক ধরনের নেশার মতো বা রোগের মত, আর তার প্রথম লক্ষণ হল উদ্যমী হওয়া। এই মানসিক রোগটা যার যতো বেশী সে ততবেশী উদ্যোগী ততবেশী সফল। এটা সহজ এবং সরল একটা অংক। উদ্যোক্তা হতে হলে আপনার প্রচন্ড কর্মনেশা থাকতে হবে আর ঝুঁকি নিতে জানতে হবে।

আমার এই ক্রাফটভিশন এর জন্ম বীজ পড়ে ফরিদপুর জেলার রাজবাড়ীতে। আমি তখন সুইডেন ও নরওয়ের একটা প্রজেক্টে কাজ করি। একদিন প্রজেক্ট ভিজিট-এ গিয়ে দেখতে পাই সুইডিশ এক ভদ্রলোক লুঙ্গি বোনার তাঁত কে কিছু বদলিয়ে পাটের সুতা দিয়ে এক ধরনের কাপড় বুনে তা থেকে হাত পার্স, মানি ব্যাগ ও স্কুল ব্যাগ তৈরি করছে। আমি সেখান থেকে কয়েকটি সেম্পল এনে আড়ংকে দেখাই ও তারা সেগুলো পছন্দ করে ।Craftvision-Jute-made-bags

আর আমি ১০ দিনের মধ্যে চাকরি ছেড়ে নরসিংদীতে কয়েকজন তাঁতী ঠিক করি ও ইমামগঞ্জ থেকে ৯ কেজি ওজনের ১টা পাটের সুতার কোন নিয়ে আসি। এ দিকে ৩/৪ মাস হয় বিয়ে করলাম। নতুন বউ আমাকে খুঁজে পায়না। আমি সারা রাত বসে বসে সুতা জাল দেই পানিতে, কিন্তু সুতা ব্লিচ হয়না। ফজরের আজানের আগে আগে সুতা সাদা হওয়া শুরু হয়েছে। ঐ রাত আমার জীবনের শ্রেষ্ঠ রাত। পাংশায় যে বীজ লাগিয়েছি, দেখছি তার চারা উঠতে শুরু করেছে।

উদ্যোক্তা শব্দের মধ্যেই মনে হচ্ছে কাউকে বেঁধে রাখছে সে বের হতে চাচ্ছে। আর তার অন্য একটা রূপ হল- বীজ থেকে অংকুর বের হওয়া আর এর জন্য দরকার কর্ম নেশায় নেশাগ্রস্ত হওয়া। ঐ যে নরসিংদী পাটের ময়লা সুতাকে সাদা করলাম, আস্তে আস্তে জীবনে সমস্ত ময়লা দুর করে সাদা করে ফেললাম। তারপর থেকে আর একদিন থেমে থাকেনি কর্ম এবং তার সাথে উন্নতি। আপনার উদ্যোক্তা হওয়ার স্বপ্নটাকে ছোট বেলার সাইকেল চালানোর সাথে তুলনা করেন। কতবার-ই না পড়ছেন সাইকেল থেকে, পা কেটে গেছে, হাতে ব্যথা পেয়েছেন, কিন্তু আপনার খেয়াল হল আমি শিখবো, আর এটাই হল নেশা-আর এটাই হল একজন উদ্যোক্তার রোগ নির্ণয়।

Craftvision-Ibrahim-Khalil-4Craftvision এর গল্পে আমার এই স্পিরিট দেখে, প্রোজেক্টের ৩ বসের সাথে মিলে শুরু করলাম GBC (Green Bangla Crafts) । কিন্তু আমাদের দেশে অংশীদারীত্ব ব্যবসার ফল অধিকাংশ ক্ষেত্রেই ভালো হয় না, অসম অংশীদারিত্ব বেশী দিন থাকে না। তাই এক সময় আমি আর থাকতে পারলাম না। আগাছা মুল গাছটাকে মেরে ফেলার উপক্রম।

মনের দুঃখে এক ডাক্তার বন্ধুর কাছে এসে বসলাম, গল্প করলাম। বন্ধু আমার কথা শুনে তার পার্টনারদের সাথে আলাপ করে আমাকে দশ হাজার টাকা দিল যেন প্রথমে আমি কোম্পানি রেজিস্ট্রেশন করে লিমিটেড করে ফেলি এবং আমি যেন এম ডি হই। সারারাত চিন্তা করলাম। অবশেষে বন্ধুদের কোম্পানির সাথে মিল রেখে নাম রাখলাম ক্র্যাফটভিশন আর বন্ধুদেরটা হল ট্রেডভিশন। হ্যাঁ ক্র্যাফটভিশন লিমিটেড কোম্পানি হয়ে যাত্রা শুরু করলো ১৯৯৮ সালে ১৫/১৭ শান্তি নগর বাজার থেকে।

Craftvision-Ibrahim-Khalil-2মেলা করছি সারা দেশে ঘুরে ঘুরে, আর মাল সরবরাহ করছি আড়ং, গ্রামীণ চেক, কারিকা, বুনন, কারুপল্লী, ভয়ো সহ সব নাম করা শো-রুমগুলোতে। Export Promotion Bureau এর Display Board-এ মাল রাখলাম যদি কোন বিদেশী ক্রেতার নজরে পড়ে। হ্যাঁ পড়লো এক দেশী-লেদার কোম্পানির চোখে। আজ শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করছি Crown Lather-এর স্বত্বাধিকারী সিরাজ ভাইয়ের কথা।

সিরাজ ভাই রাস্তা দেখিয়ে দিলেন কিভাবে দেশীয় পণ্য বিদেশে নেয়া যায় বিদেশী অনুদানে এবং হলও তাই, দুই দুই-বার জার্মানিতে গেলাম। পাট পণ্য নিয়ে গেলাম বিশ্বের নয়টি দেশ। ২০০১ সালে যখন সরকার পলিথিন বন্ধ করলো তখন বন ও পরিবেশ মন্ত্রণালয়- একটা ফোরাম করলো পলিথিনের বিকল্প ব্যাগের। আমাকে সচিব করলো আর সভাপতি করলো এক সাবেক যুগ্ম সচিবকে। একজন উদ্যোক্তার পথচলা থামেনি এক দিনের জন্যেও। কিন্তু যখন দেশের সর্ববৃহত্ত আদমজী পাট কল কল বন্ধ করে দিল, যখন একে একে আরো পাট কল বন্ধ হয়ে যাচ্ছে, আমরা তখন অসহায়।

“উদ্যোক্তা হওয়া এক ধরনের নেশার মতো বা রোগের মত, আর তার প্রথম লক্ষণ হল উদ্যমী হওয়া। এই মানসিক রোগটা যার যতো বেশী সে ততবেশী উদ্যোগী ততবেশী সফল “

বাধ্য হয়ে আমার মা মাটি ও মানুষ ছেড়ে লন্ডন চলে গেলাম, দশ বছর পরের দেশের গোলামি করলাম,‌ ব্রিটিশ শেফ হলাম। সাদা মানুষগুলো আমার রান্না খাবার খেয়ে আমার হাতে চুমু খায় আর আমার ভিতর আমার দেশের উদ্যমী উদ্যোক্তার হৃদয়ে রক্তক্ষরণ হচ্ছে। আর পারলাম না, বউ বাচ্চা নিয়ে আবার সেই ঢাকায়। এবার চ্যালেঞ্জটা আরো বড়, ঢাকা শহরে চলা ফেরা করাই মুশকিল – উদ্যোক্তা হব কিভাবে। বুড়ো হয়ে গেছি, গোলামী করে মনের জোর কমে গেছে। তারপরও টুকটুক করে করছি নীরবে। এবার Craftvision Ltd. থেকে শুধু Craftvision করলাম, আর নিজে একাই      মালিক। বললাম না, পার্টনারশিপ ব্যবসাটা আমার জন্য সুখকর নয়।

Craftvision-Ibrahim-Khalil-3এখন আমি জাপানে, ডেনমার্কে এবং গতকাল সুইডেনে লেপ, তোষক, বালিশ ও নকশি কাঁথা পাঠালাম। এছাড়া ১০/১৫ দেশের সাথে কথা হচ্ছে রপ্তানির ব্যাপারে,  আর আমি ব্যাগ বানানোর প্রশিক্ষণ করাই ডি এস কে নামে একটি এনজিও-র ২০ জন দুস্থ মহিলাকে। সারা ইউরোপে পলিথিন বন্ধ হয়ে যাচ্ছে ২০১৬ সালে তাই বাজার খুব ভাল, তাই যুবক ভাইদের অনুরোধ করছি, দেশকে ভালবাসুন, দেশের পণ্য নিয়ে কাজ করুন, নেশা ছেড়ে পেশায় নামুন, দেশ এগুবে আপনাদের কাঁধে ভর দিয়ে, ডিজিটাল স্বপ্ন দেখুন- ২০৪০ সালে বাংলাদেশ হবে আমাদের সবার স্বপ্নের বাংলাদেশ। আমার আপনার বংশধর আর যাবেনা পরের দেশে গোলামী করতে।

Craftvision-Jute-made-Products-are-delivering-to-SwedenCraftvision-Ibrahim-Khalil-1যখন-ই ক্যাব এর কার্যক্রম দেখছিলাম, তখন আমার মনের ভিতর সেই ঘুমন্ত উদ্যোক্তাটি আবার জেগে উঠলো, আবার বের হয়ে পড়লাম। ঘর থেকে বাঁধ সাধলো কারণ আমার Hi-Blood Pressor এবং ডায়াবেটিক। কিন্তু ভাই যে লোক e-Cab-এর আড্ডা শুনে তার প্রেসার হয়ে যায় নরমাল আর ডায়াবেটিক রোগী চায় কক্সবাজারের শুটকি দিয়ে কয়টা ভাত খেয়ে ২টা মিষ্টি খেয়ে ঘুমিয়ে পড়া – যা হবার পরে হবে। কারণ জীবনতো একটাই।

SHARE
বাংলাদেশে ই-কমার্স সেক্টরের বিকাশের পাশাপাশি এর সাথে জড়িত সকল ক্রেতা ও বিক্রেতাদের জন্য আলাদা একটি নিউজ মিডিয়া সময়ের চাহিদা হয়ে দাঁড়িয়েছে। তাই ই-কমার্স সংক্রান্ত দেশ বিদেশের সকল সংবাদ আপনাদের কাছে পৌঁছে দেয়ার লক্ষ্য নিয়েই কাজ করে যাচ্ছে ইকমভয়েজ ডট কম।

4 টি মন্তব্য

মন্তব্য পোস্ট করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here