আপনার গ্রাহকদের পরিনত করুন বিনিয়োগকারীতে

Make your customer a investor

এ আর হোসাইন // যেকোন ধরনের ব্যবসার ক্ষেত্রে বিনিয়োগ একটি অতি প্রয়োজনীয় এবং বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। বলা চলে ব্যবসার অন্যতম একটি ভিত্তিমূল হচ্ছে বিনিয়োগ। যেকোন ব্যবসায়ী তার ব্যবসার কোন একটি পর্যায়ে এসে বিনিয়োগের অভাব উপলব্ধি করতে থাকেন। শুরুতে আমরা আমাদের নিজেদের কাছে থাকা টাকা, আত্মীয় স্বজনদের কাছ থেকে ধার করে নেয়া টাকা দিয়ে একটি ব্যবসা শুরু হয়ত করতে পারি। কিন্তু ব্যবসার গ্রোথ বা তা পরবর্তী লেভেলে নিয়ে যাবার অবস্থা যখন তৈরি হয় তখন কোথাও থেকে অল্প টাকা ধার করে নিয়ে আগানো সম্ভব হয়ে উঠে না। নূতন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের ক্ষেত্রে ব্যাংক ঋণ পাওয়া অনেক দুরূহ কিছু ক্ষেত্রে অসম্ভব। প্রচলিত ব্যবস্থার বাইরে গিয়ে এর সমাধান আমাদের খুঁজতে হবে। বিনিয়োগ সংগ্রহের জন্যে কাজে লাগাতে পারেন আপনার ব্যবসার পণ্য বা সেবার গ্রাহকদের। প্রচলিত প্রায় সকল ব্যবসার ক্ষেত্রেই তা কার্যকর হলেও এখানে আমি বিশেষভাবে ই-কমার্স ব্যবসায়ীদের জন্যে লিখেছি।

বর্তমান সময়ে ব্যবসার জন্যে ব্যাংক ভিন্ন ব্যবস্থা অনেক কার্যকরী হয়ে উঠছে। বাইরের বিভিন্ন দেশে এর নানান রকম উদাহরণ আমরা দেখতে পাই। আমাদের দেশেও অল্প বিস্তার এ নিয়ে কাজ হচ্ছে। আপনি যদি একজন সৎ ব্যবসায়ী হোন তাহলে আপনার অবশ্যই এমন কিছু গ্রাহক থাকবে যারা আপনার এবং আপনার প্রতিষ্ঠানের প্রতি অনেক বেশী আস্থাশীল। ই-কমার্স ব্যবসার ক্ষেত্রে একজন উদ্যোক্তার সরাসরি হয়তবা তার গ্রাহকদের সাথে যোগাযোগ তেমন হয় না, কিন্তু ভার্চুয়ালী যোগাযোগ রাখা সম্ভব। এই যোগাযোগ থেকে সম্পর্ক তৈরি করে নিতে পারলে তারাই আপনার ব্যবসার ভবিষ্যৎ বিনিয়োগকারী হিসেবে কাজে আসবেন। বিভিন্ন উপায়ে আপনি তাদের কাজে লাগাতে পারেন, তাদের কাছে বিনিয়োগ করার জন্যে আহ্বান জানাতে পারেন।

কোন বিশেষ পণ্যের প্রি-অর্ডার বাবদ বিনিয়োগ সংগ্রহ: এটা একটি কার্যকরী পন্থা হতে পারে অনেক ই-কমার্স ব্যবসায়ীদের জন্যে। বিশেষ করে যারা সিজনাল, ঐতিহ্যবাহী অথবা সহজে পাওয়া যায় না এমন পণ্য নিয়ে ব্যবসা করেন। যেমন- খাটি মধু, জামদানী শাড়ি, শুটকি মাছ বিশুদ্ধ কোন পণ্য যেমন- ফরমালিন ফ্রি ফলমূল। ইত্যাদি এসকল পণ্যের বাইরেও যারা বিশেষ ধরনের বা ইউনিক কোন প্রোডাক্ট নিয়ে কাজ করেন তাঁরা এই উপায়টি কাজে লাগাতে পারেন ব্যবসার বিনিয়োগ সংগ্রহের জন্যে। এক্ষেত্রে ক্রেতাকে আপনার পণ্যটির বিশেষত্ব বর্ণনা করে তাদের কাছে এই পণ্যটি ক্রয় বিবাদ অগ্রিম অর্থ চাইতে পারেন। এই উপায়ে আপনি আপনার সেই পণ্যটি বাজার থেকে কেনার বা উৎপাদন করার জন্যে প্রয়োজনীয় অর্থ পেয়ে যাবেন।

সরাসরি বিনিয়োগ আহ্বান করে: এক্ষেত্রে আপনাকে প্রথমে আপনার ব্যবসার যাবতীয় পরিকল্পনা ঠিক করে নিতে হবে। আপনার কত টাকার প্রয়োজন সেই টাকা আপনি ব্যবসার কোথায় বিনিয়োগ করবেন ইত্যাদি সকল কিছু আপনাকে আগে থেকে ঠিক করে নিতে হবে। এরপর আপনি আপনার কাস্টমারদেরকে এগিয়ে আসার জন্যে আহ্বান জানাতে পারেন। এজন্যে আপনি আপনার ই-কমার্স সাইটকে কাজে লাগাতে পারেন অথবা আলাদা করে একটি ক্যাম্পেইন পেইজ তৈরি করে নিতে পারেন। এ উপায়ে বিনিয়োগ সংগ্রহ করার ক্ষেত্রে আপনি আপনার কাস্টমারদের বিভিন্ন অফার দিতে পারেন। আপনি তাদের কাছ থেকে ১০ হাজার টাকা করে নিতে পারেন বিনিময়ে তাঁরা আপনার ওয়েবসাইট থেকে বা আপনার ফেইজবুক থেকে যে পণ্যের অর্ডার করবে তার ওপর আপনি বিশেষভাবে ছাড় রাখতে পারেন। আর তাদের বিনিয়োগকৃত টাকা তারা যখন পণ্য কিনবে তা থেকে কেটে যাবে। এটা অনেকটা প্রি অর্ডার সিস্টেমের মত কাজ করবে তবে এই সিস্টেমের ব্যাপ্তি অনেক বেশী। এটা শুধুমাত্র বিশেষ কোন প্রোডাক্টের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য না হয়ে সামগ্রিকভাবে প্রযোজ্য হবে।

যদি আপনি সত্যিকার অর্থেই ভাল কিছু গ্রাহক তৈরি করতে পারেন, তাদেরকে অনেক ভাল সেবা দিয়ে তাদের সাথে সম্পর্ক বজায় রাখতে পারেন, তাহলে নিশ্চিত ভাবেই আপনার আহবানে আপনার গ্রাহকরা সাড়া দিবেন।

উন্নত দেশগুলোতে এমনকি চীন, ভারতেও ক্রাউডফান্ডিং নামে একটি পদ্ধতি চালু আছে যা ব্যবহার করে উদ্যোক্তারা বিনিয়োগ সংগ্রহ করার সুযোগ পান। আমাদের দেশে সেই অর্থে ক্রাউডফান্ডিং এর প্রচলন নেই। একটি মাত্র প্লাটফর্ম আছে তবে তা এখনো পুরোপুরি উদ্যোক্তা বান্ধব নয়। ক্রাউডফান্ডিং বাংলাদেশ নামে একটি টিম কাজ করছে, আমাদের দেশে উদ্যোক্তা বান্ধব একটি ক্রাউডফান্ডিং প্লাটফর্ম তৈরি করতে। এখনো তা পাইলটিং লেভেলে আছে। তবে আসা করা যার আগামী বছরের শুরু নাগাদ পুরোপুরি কাজ শুরু হয়ে যাবে। এখানে আপনারা আপনাদের বিনিয়োগ চেয়ে আবেদন করার পর আপনার গ্রাহকদেরকে অনুরোধ জানাতে পারেন সেই প্লাটফর্মে যেন তারা আপনার জন্যে বিনিয়োগ নিয়ে এগিয়ে আসে। যদি আপনি সত্যিকার অর্থেই ভাল কিছু গ্রাহক তৈরি করতে পারেন, তাদেরকে অনেক ভাল সেবা দিয়ে তাদের সাথে সম্পর্ক বজায় রাখতে পারেন, তাহলে নিশ্চিত ভাবেই আপনার আহবানে আপনার গ্রাহকরা সাড়া দিবেন।

তাহলে এখন থেকেই প্রস্তুতি শুরু করে দিতে পারেন। সেবার মান পণ্যের মান বাড়িয়ে গ্রাহকদের সাথে সম্পর্ক গড়ে তুলুন তারা আপনাকে আপনার ব্যবসাকে পরবর্তী ধাপে এগিয়ে নিয়ে যাবে।

এ আর হোসাইন
টিম লিডার, ক্রাউডফান্ডিং বাংলাদেশ
ফাউন্ডার এন্ড চীফ ওয়েব ডেভেলপার, পেসিবল

SHARE
বাংলাদেশে ই-কমার্স সেক্টরের বিকাশের পাশাপাশি এর সাথে জড়িত সকল ক্রেতা ও বিক্রেতাদের জন্য আলাদা একটি নিউজ মিডিয়া সময়ের চাহিদা হয়ে দাঁড়িয়েছে। তাই ই-কমার্স সংক্রান্ত দেশ বিদেশের সকল সংবাদ আপনাদের কাছে পৌঁছে দেয়ার লক্ষ্য নিয়েই কাজ করে যাচ্ছে ইকমভয়েজ ডট কম।

মন্তব্য পোস্ট করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here