Homeমতামত ও সাক্ষাৎকারই-কমার্স খবর ভিত্তিক ওয়েবসাইট ecomvoice.com এর আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু

ই-কমার্স খবর ভিত্তিক ওয়েবসাইট ecomvoice.com এর আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু

আজ (১৪ই আগষ্ট) ই-কমার্স খবর ভিত্তিক ওয়েবসাইট ইকমভয়েস.কম (www.ecomvoice.com) আনুষ্ঠানিক ভাবে যাত্রা শুরু করল। বাংলাদেশের ই-কমার্স সেক্টরের জন্যে এটা খুবই ভাল একটি খবর। ই-কমার্স বাংলাদেশে একটি উদীয়মান সেক্টর। ২০০০ সালে বাংলাদেশে ই-কমার্স চালু হলেও এ ইণ্ডাস্ট্রি দীর্ঘদিন ধরে অবহেলিত ছিল।

গত বছরের নভেম্বর মাসে ই-ক্যাব প্রেস কনফারেন্সে আমি বলেছিলাম যে আগামী দশ বছরের মধ্যে ই-কমার্স হবে মোবাইল ফোন বা এমনকি গার্মেন্টস সেক্টরের থেকেও বড় একটি খাত। পরের দিন বেশ কিছু পত্রিকা ও অনলাইন নিউজ সাইট গুলোতে এইকথা ছাপা হয়। তখন বেশ কয়েকজন আমার কাছে জানতে চেয়েছেন যে কিসের ভিত্তিতে একথা বলেছিলাম। তখন আমি বলেছিলাম যে আমাদের অর্থনীতি ও ব্যবসার ভবিষ্যৎ ই-কমার্সেই। কেন এমনটা মনে করছি? কারণ প্রথাগত ব্যবসায় বিশাল বিনিয়োগের প্রয়োজন হয় কিন্তু ই-কমার্সে অল্প বিনিয়োগেই করা সম্ভব। ই-কমার্স আমাদের দেশের জন্যে দারুণ আশীর্বাদ বয়ে আসতে পারে। ঢাকার বাইরের মানুষের জন্য তাদের পন্য ও সেবা বিক্রি করা বেশ কঠিন। তাদের পক্ষে সম্ভব নয় ঢাকা ও চট্টগ্রামে এসে দোকান খুলে বসে। কিন্তু ই-কমার্স এর মাধ্যমে তারা তাদের অনলাইন শপ খুলে বসতে পারেন খুবই অল্প বিনিয়োগে।

সংকট কাটিয়ে একটি সফল ই-কমার্স ইণ্ডাস্ট্রি গড়ে তোলার প্রধান শর্তই হচ্ছে সাধারণ মানুষের মধ্যে ই-কমার্স সম্পর্কে সচেতনতা এবং আগ্রহ সৃষ্টি এবং তা করতে হলে দরকার একটি শক্তিশালী মিডিয়া। আমি মনে করি, ই-কমার্স ভয়েস সেই জায়গাটি পূরণ করতে সক্ষম হবে।

ই-কমার্স কোম্পানির সংখ্যা যত বাড়বে চাকুরির বাজার ততই বাড়বে। তাছাড়া অনলাইন শপিং সাইটগুলোকে সাপোর্ট দেবার জন্য প্রফেশনাল ব্লগিং, এফিলিয়েট মার্কেটিং, ক্লাউড হোস্টিং, ওয়েব ডিজাইন ও ডেভেলপিং, প্রোডাক্ট ফটোগ্রাফি সহ নানা ধরনের কোম্পানির দরকার হবে। ফলে একটি অনলাইন শপিং সাইট হলে এর জন্য কমপক্ষে আরেকটা সহায়ক কোম্পানির জন্ম হবে। তাছাড়া বুটিক হাউস, টুরস এন্ড ট্রাভেলস, আবাসিক হোটেল, রেন্ট-এ-কার সার্ভিস এ ধরনের অনেক কোম্পানি ই-কমার্সে আসতে বাধ্য হবে।

বিগত ২/৩ বছরে বাংলাদেশে ই-কমার্স জনপ্রিয়তা লাভ করেছে কিন্তু তারপরেও এ সেক্টরটি অনেক সমস্যায় জর্জরিত। এসব সংকট কাটিয়ে একটি সফল ই-কমার্স ইণ্ডাস্ট্রি গড়ে তোলার প্রধান শর্তই হচ্ছে সাধারণ মানুষের মধ্যে ই-কমার্স সম্পর্কে সচেতনতা এবং আগ্রহ সৃষ্টি এবং তা করতে হলে দরকার একটি শক্তিশালী মিডিয়া। আমি মনে করি, ইকমভয়েস সেই জায়গাটি পূরণ করতে সক্ষম হবে।

RELATED ARTICLES
- Advertisment -spot_img

Most Popular