Homeঅন্যান্যওপিজি ও অনলাইন পেমেন্ট প্রসেস

ওপিজি ও অনলাইন পেমেন্ট প্রসেস

জাহাঙ্গীর আলম শোভন // ই-কমার্স উদ্যোক্তাদের অনেক সমস্যার সমাধান করে দিয়েছে ওপিজি। লেনদেন করে দিয়েছে সহজ। বিকাশ বা এসএপরিবহন মানি ট্রান্সফারের চেয়ে কম খরচে পেমেন্ট গ্রহনের সুযোগ। সরাসরি ব্যাংক রিলেটেড লেনদেন তাই প্রতিটি পক্রিয়া নিরাপদ ও বিশ্বস্ত। আপাতত পেপ্যাল এর বিকল্প হিসেবে অনলাইন গেটওয়ে সেবা অনলাইন লেনদেন এর এক যুগান্তারী সমাধান

অনলাইন পেমেন্ট গেটওয়ে -ওপিজি
আমাদের দেশে ওপিজি র ইতিহাস খুব বেশী পুরনো নয়। এবং ব্যবহারের দিক থেকেও খুব বেশী বিস্তৃত নয়। অনলাইন পেমেন্ট গেটওয়ে এমন একটি মাধ্যম যাতে আপনি অনলাইনে ডিজিটাল ফরম্যাটে লেদদেন করতে পারেন। মাচেণ্ট হিসেবে আপনি গ্রাহকের কাছ থেকে পন্য বা সেবার মূল্য গ্র্রহণ করতে পারেন। আর গ্রাহক তার ক্রেডিট , ডেবিট কার্ড, অনলাইন ব্যাংকিং এর সাহায্যে আপনাকে যেকোন স্থান থেকে মূল্য পরিষোধ করতে পারে। উন্নত বিশ্বে সকল প্রকার কেনাবেচা আজকাল আনলাইনে এবং কার্ডের মাধ্যমে হচ্ছে। ক্রেতারা যেমনি অণলাইনে পে করতে অভ্যস্ত তেমনি মার্ন্টরাও অনলাইনে অর্থ গ্রহণ করতে স্বাচ্ছন্দ বোধ করে। এটা নিরাপদ ও স্বচ্চন্দ কারণ ২টি পক্ষের মাঝখানে ব্যাংক পুরো পক্রিয়াটা সম্পন্ন করছে।

ওপিজি চার্জ
দেশের সব গেটওয়ে অন্যান্য বিশ্বের মতো ট্রানজেকশন এর সাথে একটা চার্জ নিয়ে থাকে। এর শতকরা হার ৩-৭% পর্যৃন্ত হয়। তবে বাংলাদেশী গেটওয়েগুলো সাধারণত কম চার্জ করে থাকে। এর পরিমাণ ২.৮% থেকে ৪ শথাংশ পর্ণ্ত। এছাড়া দেশীয় গেটওয়ে গুলো শুরুতে একটা রেজিস্ট্রেশান ফি নিয়ে থাকে। এর পরিমাণ ২-২০ হাজার পর্যন্ত। কোনো কোনো ক্ষেত্রে এটি এখন ৫ হাজারে নেমে এসেছে। কখনো কখনো বিশেষ অফারের আওতায় এই ফি না নিয়েও ওপিজিগুলো রেজিস্ট্রেশান এর সুযোগ দেয়। কোনো হাউজ মাসিক ও বাতসরিক চার্জও নিয়ে থাকে।

মার্চেন্ট এর আইডেন্টিফিকেশান
আপনি যখন অনলাইন পেমেন্টগেট ওয়েব রেজিস্টার করবেন তখন আপানাকে মার্চেন্ট আইডি দেয়া হবে। আপনি চাইলে একটি ব্যাংক অ্যাকাউন্ট এর বিপরীতে এাকাধিক মার্চেন্ট আইডি নিতে পারনে। এবং শুধু যে ইকমার্স ব্যবসায়ীরা পেমেন্ট গেটওয়ে নেবে তা নয়। অফলাইনে যারা ব্যবসা করেন যাদের একটি ই কমার্স ওয়েবসাইট রয়েছে তারাও অনলাইন পেমেন্ট গেটওয়ে সেবা নিতে পারেন একই পক্রিয়া অনুসরণ করে।
আপনি একজন ব্যবসায়ী বা উদ্যাক্তা হিসেবে বিদ্যমান আ্ইনের আওতায় অনলাইন পেমেন্ট গেটওয়ে সেবা নেয়ার জন্য সর্ব প্রথম ব্যবসায়ী হিসেবে ট্রেড বা ব্যবসা থাকতে হবে, থাকতে হবে তার একটি বৈধ লাইসেন্স। আপনার থাকতে পারে লিমিটেড কো মম্পানি হিসেবে জয়েন্ট স্টক যেকোন একটি নিবনবন্ধণ, এটা ইউনিয়ন পরিষদ, সিটিকরোরেশন বা পৌরসভা যেকোন কতৃপক্ষের দ্বারা ইস্যুকৃত হতে পারে। দরকার হবে জাতীয় পরিচয় পত্র, টিআইন সনদ এবং এ কটি ব্যাংক অ্যাকাউন্ট যা আপনার ফার্মের নামেই হবে।

উদ্যোক্তার জন্য
এই সেবাটি এক্টিভেট করতে আপনার প্রয়োজন হবে কিছু প্রযুক্তিগত সক্ষমতা। মাচেণ্টদের অণলাইন শপ বা ই কামর্স সাইটের সিস্টেম এর সাথে অনলাইন পেমেন্টগেটওয়ে ইন্টেগ্রেট করার জন্য আপনি যে কোম্পানী থেকে পেমেন্ট গেটওয়ে সেবা নিবেন তারা আপনাকে সাহায্য করবে। অথবা তাদের সাথে আপনি আপনার ওয়েব ডেভেলপারকে সম্পৃক্ত করেও সার্ভিস একটিভ করতে পারেন। যে ব্যাঙ্কের সাথে ইন্ট্রিগেট করার দরকার হবে তাদের নিজেদের এপিআই/ইন্ট্রিগ্রেশন প্রসেস থাকবে। তবে প্রথমেই ঐ ব্যাঙ্কের একটা একাউন্ট লাগবে। ওপিজি হাউসগুলো সাপ্তাহে ১/২/৩ বার পেমেন্ট করে থাকে। তবে টাকা সরাসরি আপনার বিজনেস একউন্টে জমা হবে। পেমেন্ট গেটওয়ে কোম্পানী আপনাকে লেনদেনের সামারি বা তথ্যসমূহ প্রদান করবে বা দেখার সুযোগ করে দেবে।

RELATED ARTICLES
- Advertisment -spot_img

Most Popular