গতকাল (২০ আগস্ট) রাজধানীর মতিঝিলে বাংলাদেশে ব্যবসায়ীদের অন্যতম শীর্ষ সংগঠন ঢাকা চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রিজ (DCCI) এর অডিটোরিয়ামে অনুষ্ঠিত হয়ে গেল ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তাদের জন্য “ই-কমার্সঃ প্রত্যাশা ও প্রতিকূলতা” শীর্ষক এক সেমিনার। অনুষ্ঠানটির সঞ্চালনা করেন ডিসিসিআই সভাপতি জনাব হোসাইন খালেদ ও মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন টেলিযোগাযোগ, তথ্য ও মেধাস্বত্ত্ব অধিকার বিষয়ক স্থায়ী কমিটির আহ্বায়ক সৈয়দ আলমাস কবির। তিনি বলেন, ই-কমার্সের জয়-জয়কার এখন সাড়া পৃথিবীতে ও বাংলাদেশেও এর জনপ্রিয়তা দিনদিন বাড়ছে। ই-কমার্সের জনপ্রিয়তার প্রধান শর্ত হচ্ছে ক্রেতার আস্থা অর্জন এবং সেজন্য এখনি প্রয়োজন একটি সঠিক ও যুগোপযোগী নিতিমালা যা সকল ই-কমার্স ব্যবসায়ীরা মেনে চলবে।

DCCI-ecommerce-seminer-1 ই-ক্যাবের প্রেসিডেন্ট জনাব রাজিব আহমেদ বলেন, ই-কমার্সের বাজার সম্ভাবনা অনেক বড়, কিন্তু মোট জনসংখ্যার ১% লোকও এখন অনলাইনে কেনাকাটা করে না। এই সংখ্যাকে যদি ১০% এ উন্নীত করা যায় তাহলে এই খাতে এক বিশাল বাজার তৈরি হবে। ই-কমার্সের এই সম্ভাবনাময় খাত আগামী ১০ বছর করমুক্ত রাখতে সরকারের কাছে দাবি জানিয়েছেন তিনি। তাছাড়া গ্রাহক পর্যায়ে সচেতনতা বৃদ্ধির জন্য মিডিয়া সাপোর্ট ও এই খাতে দক্ষ জনশক্তি তৈরির জন্য সরকারি-বেসরকারি পর্যায়ে দ্রুত উচ্চশিক্ষা চালুর প্রস্তাবও করেন তিনি।

অনুষ্ঠানে বক্তারা ট্রেড লাইসেন্সে ই-কমার্স অন্তর্ভুক্ত করা, অনলাইন সিকিউরিটি, ভোক্তা সুরক্ষা সেল গঠন, কপিরাইট আইন, সকল প্রকার অনলাইন পেমেন্ট কার্ড উন্মুক্ত করা, বিদেশ থেকে ইস্যুকৃত কার্ড (VISA, MASTERCARD, AMEX) সহজে পেমেন্ট গেটওয়েতে গ্রহণ করা, মোবাইল ব্যাংকিং আরও সহজ করা, পেপেলের বিকল্প কোন অনলাইন ওয়ালেট চালু করা, সাড়া দেশে দ্রুত গতির ইন্টারনেট সেবা চালু করা, SME উদ্যোক্তাদের সহজ শর্তে ঋণ প্রদান ইত্যাদি বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন। গ্রামের কৃষি পণ্য ই-কমার্সের মাধ্যমে সাড়া দেশে ছড়িয়ে দেয়া, নারীর ক্ষমতায়ন ও বেকার সমস্যা দূরীকরণে ই-কমার্সের ভূমিকার বিষয়টিও বক্তাদের কথায় উঠে আসে।

DCCI-ecommerce-seminer-2ই-কমার্সের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ও অবিচ্ছেদ্য একটি অংশ কুরিয়ার/ডেলিভারি সার্ভিস। বাংলাদেশের সকল যায়গায় পণ্য সঠিক সময়ে গ্রাহকের হাতে পৌঁছে দেয়া সকলের একটি অন্যতম দাবী। এই দিকটির নানান প্রতিকূলতা ও তা কিভাবে মোকাবিলা করা যায় এই বিষয়টি নিয়ে কথা বলেন ইকুরিয়ার লিমিটেডের সিইও বিপ্লব জি রাহুল।

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রেখেছেন, ডিসিসিআই’র ডাইরেক্টর কে আতিক-ই-রাব্বানী, বাংলাদেশ ব্যাংকের এসএমই শাখার মহাব্যবস্থাপক স্বপন কুমার রায় প্রমুখ।

সর্বোপরি গ্রাহক, উদ্যোক্তা, ব্যবসায়ী ও সরকার সবাই মিলে বাংলাদেশে ই-কমার্সকে কিভাবে প্রতিষ্ঠিত করা যায় ও এই খাতে বিরাজমান সমস্যাগুলো দূর করা, যায় তা বক্তাদের আলোচনায় উঠে আসে।

ফটো ক্রেডিটঃ  Ruhul Quddus Choton

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here